ঢাকা, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৮, ১ পৌষ ১৪২৫
---
---
Demo Newspaper
প্রচ্ছদ » আর্ন্তজাতিক » গ্রিসের পরবর্তী বেইল আউট নিয়ে দাতাদের কঠোর অবস্থান
সোমবার ● ১৩ জুলাই ২০১৫
Decrease Font Size Increase Font Size Email this News Print Friendly Version

গ্রিসের পরবর্তী বেইল আউট নিয়ে দাতাদের কঠোর অবস্থান

---

জরুরি শীর্ষ বৈঠকে প্রায় দেউলিয়া হয়ে পড়া গ্রিসের সঙ্গে রবিবার গভীর রাতেও দরকষাকষিতে ব্যস্ত ছিলেন ইউরোজোনের নেতারা। গ্রিসকে ঋণসংকট থেকে টেনে তুলে ইউরোপীয় একক মুদ্রায় ধরে রাখার আলোচনা শুরু করার আগে আস্থা ফিরিয়ে আনার দাবি জানিয়েছে ইউরোজোনের দাতারা। আস্থা ফিরিয়ে আনতে চলতি সপ্তাহেই মূল সংস্কার কর্মসূচিগুলো শুরু করতে গ্রিসের প্রতি চাপ সৃষ্টি করছেন জোনের নেতারা। এ জন্য গ্রিসের বামপন্থী প্রধানমন্ত্রী অ্যালেক্সিস সিপ্রাসকে পার্লামেন্টের মাধ্যমে আইন জারি করতে বলেছেন তারা। এসব পদক্ষেপের মাধ্যমে ইউরোজোনে থাকা গ্রিসের বাকি ১৮ অংশীদার সন্তুষ্ট হলে আট হাজার ছয় শ কোটির ইউরোর তৃতীয় বেইল আউট কর্মসূচি নিয়ে আলোচনা শুরু করার কথা বলেছেন তারা। এর মধ্যে রাষ্ট্রীয়ভাবে গ্রিসের দেউলিয়া হয়ে যাওয়া ঠেকাতে তাৎক্ষণিকভাবে তহবিল যোগানোর বিষয়টিও আছে কর ও পেনসনসহ বেইল আউট কর্মসূচির ছয়টি মূল প্রস্তাব বুধবার রাতের মধ্যে গ্রিসের পার্লামেন্টে পাস করে আইন জারি করার কথা বলা হয়েছে। এ ছাড়া আলোচনার শুরু করার আগেই বেইল আউটের পুরো প্যাকেজের পক্ষে গ্রিক পার্লামেন্টের সমর্থন চাওয়া হয়েছে। ইউরো গ্রুপের অর্থমন্ত্রীদের খসড়া সিদ্ধান্তের যে তালিকা জোনের নেতাদের কাছে পাঠানো হয়েছে তাতে এসব কথাই বলা হয়েছে। শর্তগুলো মানতে ব্যর্থ হলে গ্রিসকে সাময়িকভাবে ইউরোজোনের বাইরে রাখার জার্মানির প্রস্তাবও ওই সিদ্ধান্তগুলোর মধ্যে রাখা হয়েছে।

তবে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) এক জ্যেষ্ঠ সূত্র বলেছেন, জার্মানির ওই প্রস্তাবটি বেআইনি, সিপ্রাস যদি অন্যান্য কঠোর শর্তগুলো মেনে নেন তাহলে এটি সম্মেলনের বিবৃতি থেকে বাদ দেওয়া হতে পারে। ব্রাসেলসে অনুষ্ঠিত ইউরোজোনের নেতাদের বৈঠকে যোগ দিতে এসে সিপ্রাস বলেছেন, ইউরোপকে একত্রিত রাখতে তিনি আরেকটি সৎ সমঝোতা করতে চান। তবে এখনই আলোচনা শুরু করার জন্য এসব শর্তও যথেষ্ট নয় বলে জানিয়েছেন জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মের্কেল। ইউরোজোনের বেইল আউট প্রস্তাবের সবচেয়ে বড় দাতাদেশ জার্মানি। গ্রিসকে অতিরিক্ত ঋণ সহায়তা দেওয়ার বিষয়ে নিজ দেশের বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর বিরোধিতায় চাপে আছেন মের্কেল।

বুধবার রাতের মধ্যে শর্তগুলো পালনের বিষয়ে গ্রিস অনুকূল সাড়া দিলে, বৃহস্পতিবার বিষয়টি নিয়ে জার্মান পার্লামেন্ট অধিবেশনে বসবে। ওই অধিবেশনে মের্কেল সরকার নতুন ঋণ নিয়ে আলোচনা শুরু করতে পারবেন কিনা তা নির্ধারিত হবে। এরপর বেইল আউট নিয়ে আনুষ্ঠানিক আলোচনা শুরু করতে ইউরো গ্রুপের অর্থমন্ত্রীরা শুক্রবার বা পরবর্তী সাপ্তাহিক ছুটিতে ফের মিলিত হতে পারেন।


টাইগারদের খালেদা জিয়ার অভিনন্দন

দেশের সবচেয়ে উঁচু সড়ক উদ্বোধন মঙ্গলবার


পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
পরীক্ষামূলকভাবে সিম নিবন্ধন শুরু হয়েছে
এসডিজি অর্জনে অর্থায়নই বড় চ্যালেঞ্জ: সিপিডি
কোনালের ‘সুখ থামে না’
আব্বা মুক্ত থাকলে আমাদের ছিল ডাবল ঈদ
মেডিকেল ভর্তির ফল বাতিল চেয়ে করা রিট খারিজ
যে পোশাক অদৃশ্য করে দেবে
সবচেয়ে ধনী দেশ এখন কাতার
চাই জেন্ডার সমতা ও নারীর ক্ষমতায়ন
ক্রোয়েশিয়ার দিকে ছুটছে অভিবাসন-প্রত্যাশীরা
লন্ডন পৌঁছেছেন খালেদা জিয়া